‘ছাত্র রাজনীতি’র পক্ষে শিক্ষামন্ত্রীর সায়।

0
20

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসে রাজনীতির পক্ষে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি বলেছেন, যদি রাজনীতিমুক্ত ক্যাম্পাস হয় মেডিক্যাল কলেজ, তাহলে একজন দীপু মনি কোথা থেকে তৈরি হবে? কারণ, রাজনীতিই কিন্তু শেষ পর্যন্ত গিয়ে সবকিছু নির্ধারণ করে।

গত বৃহস্পতিবার চাঁদপুর মেডিক্যাল কলেজের এমবিবিএস কোর্সের প্রথম বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের পরিচিতি সভায় কলেজ অধ্যক্ষ ডা. জামান সালাউদ্দিন তার বক্তব্যে শিক্ষার্থীদের রাজনীতিমুক্ত ক্যাম্পাস রাখার নির্দেশনা দিয়ে বক্তব্য রাখেন।

আর এরপরেই শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি তার বক্তব্যে ক্যাম্পাসে রাজনীতি করার পক্ষে মত দেন এবং ছাত্রলীগসহ দু’টি সংগঠনের কমিটি গঠনের আহ্বান জানান। এ সময় উপস্থিত নেতাকর্মী ও সমর্থকরা হাততালি দিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যকে স্বাগত জানান।

ডা. দীপু মনি বলেন, এই যে মেডিক্যাল এখানে স্থাপিত হয়েছে এটি কিন্তু রাজনীতিক সিদ্ধান্ত। আমাদের শিক্ষা কেমন হবে সেটি কিন্তু রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত। আমি এই পৌরসভায় কিংবা কোন প্রত্যন্ত চরাঞ্চলে আমি সুপেয় পানি পাবো কিনা এটি রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত।

‘জীবনের কোন কিছুই রাজনীতির বাইরে কিংবা রাজনীতির উর্ধ্বে নয়। আর মানুষ রাজনৈতিক জীব কি করে অরাজনৈতিক হবে- এটিতো হওয়া সম্ভব নয়।’

তিনি বলেন, আমাদের অধ্যক্ষ মহোদয় বলে দিলেন রাজনীতিমুক্ত ক্যাম্পাস। উনি আসলে যেটি চেয়েছেন রাজনৈতিক হানাহানিমুক্ত ক্যাম্পাস। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমি মেডিক্যালে ভর্তি হওয়ার পর সংগঠন করেছি।

‘এর মধ্যে একটি হচ্ছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ শাখা এবং আরেকটি সন্ধানী ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ। আমি আশা করি, চাঁদপুর মেডিক্যাল কলেজেও সন্ধানীর একটি শাখা হবে এবং ছাত্রলীগেরটাও আশাচকরি হয়ে যাবে।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, উনি (অধ্যক্ষ) অবশ্য বলেছেন, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত- কাজেই আমি কিন্তু অধ্যক্ষের কথার বাইরে যাচ্ছি না। অধ্যক্ষই নিশ্চই পরবর্তী নির্দেশ দিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে সংগঠন করার যে স্বাধীনতা রয়েছে সেটি করবেন। কারণ, আমরা সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কারো অধিকার নেই। সংবিধানে আমাদের মৌলিক যে অধিকার রয়েছে তার মধ্যে ফ্রিডম অব স্পিস, ফ্রিডম অব এসোসিয়েশন আছে। সেটিকে কিন্তু কেড়ে নেওয়ার জায়গা নেই।

এ সময় অনুষ্ঠানে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, ডা. জে আর ওয়াদুদ টিপু, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. জামান সালাউদ্দিন, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি শহীদ পাটোয়ারী ও মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীসহ জেলা বিএমএ ও স্বাচিপের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
.
– নিজস্ব প্রতিনিধি : আলতাফ হোসেন
– সত্যের সাথে আগামীর পথে।
– শেয়ার করুন পোষ্টটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here